সিদ্ধার্থ পাত্র-র কোলাজ প্রদর্শনী

পূর্ব-মেদিনীপুরের কাঁথি শহরে হয়ে যাওয়া শিল্পী সিদ্ধার্থ পাত্র-র প্রথম একক চিত্র-প্রদর্শনী নিয়ে উদ্ভাস-এর পর্যবেক্ষণ।

শিল্পী সিদ্ধার্থ পাত্র-র জন্ম ১৯৭৩ সালে, থাকেন পূর্ব-মেদিনীপুরের কাঁথিতে। পেশায় তিনি বিমা-প্রতিনিধি, নেশায় চিত্রশিল্পী। তাঁর কাছে চিত্র মানে কোলাজ-শিল্প। বিচিত্রবর্ণের কাগজের টুকরো আঠা দিয়ে আটকে তিনি ছবি রচনা করেন কাগজের সমতলে। সম্প্রতি কাঁথি রাও রিক্রিয়েশন ক্লাবে (৮-১১ আগস্ট) তাঁর শিল্পকর্মের প্রদর্শনীর আয়োজন করেছিলেন শিল্পী নিজেই। প্রদর্শনীর শিরোনাম ‘প্রাণের কবি’, যার মূল সুরটি ছিল রবীন্দ্রনাথকে অবলম্বন করে। মোট ৩৯টি ছবির মধ্যে সিংহভাগ ছবির বিষয়ই ছিল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সুনির্দিষ্ট কিছু গান ও কবিতার পংক্তি। আর ছিল বেশ কয়েকটি রবীন্দ্র-প্রতিকৃতি।3

সিদ্ধার্থ একজন স্বশিক্ষিত শিল্পী। তাঁর প্রধান দুই অনুপ্রেরণা যথাক্রমে বি.আর.পানেসর ও তাঁর স্নেহধ্য কোলাজশিল্পী শাকিলা। সিদ্ধার্থ তাঁদের শিল্পকর্ম দেখে কাজ শিখেছেন, আয়ত্ত্ব করেছেন কোলাজের কলাকৌশল। তাঁর কোলাজের শৈলীটি বাস্তবানুগ, মাধ্যমটিতে দক্ষতার গুণে ছবিগুলি রসোত্তীর্ণ হয়েছে। ছবিতে রঙের বিন্যাস, আলোছায়ার খেলা, সর্বোপরি বিষয়ের উপস্থাপনা চমৎকার। তাঁর কিছু ছবিতে ইলাস্ট্রেশনধর্মীতা আছে। এই প্রবণতাটিকে কাটিয়ে উঠতে পারলে আগামীতে তিনি কোলাজশিল্পী হিসেবে আরো সুনাম অর্জন করবেন নিঃসন্দেহে। সিদ্ধার্থর ছবিতে গ্রাম্য ল্যান্ডস্কেপগুলি স্বতঃস্ফূর্ত, কোথাও কোনও কৃত্রিমতা নেই। বিচিত্রবর্ণের আকাশ, জলের বুকে তার টলমলে ছায়া, কর্মরত মানুষ, কোথাও মুরগি-লড়াইয়ের দৃশ্য, 8-1কোনও ছবিতে সাঁওতালি নাচের উন্মাদনা, গাছের ডালে ফুলের বাহার অত্যন্ত মনোরম। একটি ছবিতে দেখা গেল দাঙ্গার প্রেক্ষাপটে একটি মুসলমান বালক এক হিন্দুরমনীর হাত ধরে পালাচ্ছে। এ ছবিতে শিল্পীর সমাজমনস্কতার পরিচয় সুস্পষ্ট। ভালো লাগে একটি ত্রিভুজাকৃতি ফ্রেমের ভেতরে গৌতমবুদ্ধকে ঘিরে দশজন নারী-পুরুষের ঘুর্ণায়মান অবয়ব। রবীন্দ্রগানের অন্তর্লোকের এক আশ্চর্য উন্মোচন এই ছবিটির মধ্যে।

কাঁথির মতো একটি ছোট শহরে সিদ্ধার্থ তাঁর প্রথম একক চিত্র প্রদর্শনীটি করে একটি গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক কাজ করেছেন। তাঁর এ ছবিগুলি কলকাতার গ্যালারিতে প্রদর্শিত হলে তিনি হয়তো আরো বেশি প্রচার

অন্ধকারের উৎস হতে উৎসারিত আলো

অন্ধকারের উৎস হতে উৎসারিত আলো

পেতেন। কিন্তু চিত্রচর্চার পক্ষে তথাকথিত অনুর্বর ক্ষেত্র মফস্বল শহরে আয়োজিত এই প্রদর্শনী যে চিত্রকলার পরিধিকে আরো একটু প্রসারিত করল, তার জন্য সিদ্ধার্থ পাত্রকে আমাদের অতিরিক্ত অভিনন্দন।CHAYAR GHOMTA MUKHE TANI ACHE AMADER PARA KHANI

Advertisements
This entry was posted in Cultural journey and tagged , , . Bookmark the permalink.

2 Responses to সিদ্ধার্থ পাত্র-র কোলাজ প্রদর্শনী

  1. tapas mati বলেছেন:

    Amra Sidhhartha ke aro baro prisare dekhte chai…………….

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s