চিত্রমেলা বহরমপুরে

সম্প্রতি বহরমপুরে আয়োজিত এক চিত্রমেলার প্রতিবেদন সুমনা অধিকারী-র কলমে

Photo1030মুর্শিদাবাদের নবাবী ঐতিহ্য একসময় সারা দুনিয়ায় পরিচিত ছিল। চিত্রকলার প্রতি নবাবদের অনুরাগের কথা সুবিদিত। বর্তমানে মুর্শিদাবাদের হাজারদুয়ারী মিউজিয়ামে রক্ষিত তৈলচিত্রগুলি নবাব-পরিবারের শিল্পপ্রীতির প্রমাণস্বরূপ। এছাড়াও বাংলার পটচিত্রকলায় মুর্শিদাবাদের শিল্পীদের বিশেষ অবদান আছে। একসময় বাংলার পটচিত্রে মুর্শিদাবাদের শিল্পীদের নাম সম্মানের সঙ্গে উচ্চারিত হত। ছবির পাশাপাশি মূর্তিশিল্প অথবা বস্ত্রবয়ন শিল্পেও একদা মুর্শিদাবাদের অবস্থান ছিল উচ্চাসনে। মুর্শিদাবাদের মৃৎশিল্পী যামিনী পালের খ্যাতির কথা কে না জানেন?

নানাবর্গের শিল্পীর ঘরানায় পরিবৃত এই শহরের সাম্প্রতিক চিত্রচর্চার কিছু নিদর্শন পাওয়া গেল খুব সম্প্রতি চিত্রচয়ন আয়োজিত চিত্রপ্রদর্শনীতে। গত ২৭ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল ২০১৪ বহরমপুর রবীন্দ্রসদন প্রাঙ্গণে আয়োজিত হয় এই প্রদর্শনী। মূল উদ্যোক্তা শিল্পী সৌম্যেন্দ্রনাথ মণ্ডল এবং তাঁর দুই সুযোগ্য সহকারী শেখর মণ্ডল ও অভিজিৎ দত্ত। তাঁদের আয়োজনে এই প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছিল ২৫০ জনেরও বেশি ছাত্র-ছাত্রী। প্রদর্শনীর সূচনাপর্বে সায়ন্তন সেন-এর গানের সঙ্গে ক্যানভাসে ছবি আঁকছিলেন শিল্পীরা। শিল্পীদের মধ্যে ছিলেন সুদীপ্ত হালদার, সলিল দাস, ধ্রুবজ্যোতি বরাট, চন্দন বিশ্বাস, দেবনাথ দাস, অভিষেক আচার্য্য, জয়দেব কর্মকার ও কৃষ্ণজিৎ সেনগুপ্ত। উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কবি নাসের হোসেন ও শিল্প সমালোচক অরূপ চন্দ্র। খোলামাঠে কাপড় ও বাঁশ দিয়ে অস্থায়ী দেওয়াল তৈরি করে প্রদর্শনীটি সাজানো হয়েছিল, যা দেখে বারবারই মনে হচ্ছিল একটিই কথা যে, এত শিল্পসমৃদ্ধ জেলাঞ্চল হয়েও এখানে কোনো আর্ট গ্যালারি নেই। প্রাকৃতিক দুর্যোগের অনিশ্চয়তা ও নানারকম নিরাপত্তার অভাব নিয়ে এই জেলার শিল্পীরা কাজ করে চলেছেন।

এই প্রদর্শনীতে বেশিরভাগই শিশুশিল্পীদের কাজ দেখা গেছে। দেখে মনে হচ্ছিল রবীন্দ্রসদনের খোলা প্রাঙ্গণে যেন রঙের হাট বসেছে। ছবির সঙ্গে ছিল কোলাজ ও মৃৎপাত্রে আঁকা কিছু শিল্পসামগ্রী। ছোটো ছোটো শিল্পীদের অনেকের কাজেই দক্ষতা প্রকাশ দেখা গেছে, যদিও বেশিরভাগ ছবিই বই থেকে দেখে আঁকা বা সুপরিচিত কোনো কাজের প্রতিলিপি। আগামীতে তারা নিজেদের ভাবনা থেকে ছবি আঁকবে, দর্শক হিসেবে আমাদের এইরকমই প্রত্যাশা।

এই চারদিনের চিত্রমেলাতে আর একটি বিশেষণ আকর্ষণ ছিল তথ্যচিত্রের প্রদর্শনী। সেখানে দেখা গেছে গগনেন্দ্রনাথ ঠাকুর, ভিনসেন্ট ভ্যান গখ ও বিনোদবিহারী মুখোপাধ্যায়কে (ইনার আই : সত্যজিৎ রায়) নিয়ে করা তিনটি অসাধারণ তথ্যচিত্র। চিত্রচয়নকে ধন্যবাদ এমন একটি ছবির মেলা উপহার দেবার জন্য।

Photo1033

Advertisements
This entry was posted in Cultural journey and tagged . Bookmark the permalink.

1 Response to চিত্রমেলা বহরমপুরে

  1. nandimrinal বলেছেন:

    আগামীকাল ২৫শে বৈশাখ চোখ রাখুন আমাদের ব্লগ-সাইটে।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s